1. admin@danikagonikontho.com : admin :
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৭:১৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চট্টগ্রামে প্রধানমন্ত্রীর জনসভার নিরাপত্তায় সাড়ে সাত হাজার পুলিশ নিয়োজিত থাকবে মণিরামপুরে মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত ৪ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম পলোগ্রাউন্ড মাটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সফল করার লক্ষ্য যুবলীগের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈলে মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে সহকারীকে মারধরের অভিযোগ কয়রায় নবাগত ইউএনও মমিনুর রহমানের যোগদান কয়রায় আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত সোনারগাঁওয়ে টেক্সটাইল মিল ও মিষ্টি কারখানায় আগুন মঠবাড়িয়া পৌর প্রশাসকের দায়িত্ব নিলেন সেলিম মাতুব্বর “আলোকিত চট্টগ্রাম” পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত,সভাপতি-ফিজার,সম্পাদক-মিতা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকে কারন দর্শানোর নোটিশ

  • আপডেট সময় : রবিবার, ১৩ মার্চ, ২০২২
  • ৬৬ বার পঠিত

তহিদুল ইসলাম রাসেল, চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধানঃ-
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ক্রিমিনোলজি অ্যান্ড পুলিশ সায়েন্স বিভাগে যোগ্যতাসম্পন্ন শিক্ষক থাকা সত্ত্বেও অন্য বিভাগের শিক্ষককে কেন সভাপতি রাখা হয়েছে— এমন ব্যাখ্যা চেয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতারসহ চারজনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি আইন মেনে ওই বিভাগে সভাপতি নিয়োগের নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে।
গত বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। আজ রোববার হাইকোর্টের নির্দেশনা বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছেছে। এতে গত বছরের ২৪ নভেম্বর রেজিস্ট্রার বরাবর পাঠানো আবেদনটি ১৫ কর্মদিবসের মধ্যে বাস্তবায়ন করারও নির্দেশনা দেয়া হয়।
এর আগে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি বিধি লঙ্ঘন করে অন্য বিভাগের শিক্ষককে সভাপতি রাখার অভিযোগে হাইকোর্টে রিট করেন ক্রিমিনোলজি এন্ড পুলিশ সায়েন্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. সাখাওয়াত হোসেনসহ তিন শিক্ষক।

বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম মনিরুল হাসান বলেন, ‘আমরা আনঅফিশিয়াল একটা রিট পিটিশন পেয়েছি। হাইকোর্ট আমাদের ব্যাখ্যা জানতে চেয়েছেন। আইন মোতাবেক সব করা হচ্ছে।’

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদের অধীনে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষ থেকে ক্রিমিনোলজি এন্ড পুলিশ সায়েন্স বিভাগের যাত্রা শুরু হয়। প্রতিষ্ঠাকালিন সময়ে, সমাজতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী ১ম বিভাগীয় সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। পরে ২০১৮ প্রভাষক (স্থায়ী পদে) হিসেবে ওই বিভাগে যোগদান করে তিন শিক্ষক। অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী অবসরে গেলে বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার বিভাগীয় সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন।
তবে কর্তৃপক্ষ সেই আবেদন অগ্রাহ্য করে ড. এ.বি.এম. নাজমুল ইসলাম খানকেই বিভাগীয় সভাপতি হিসেবে মেনে নিতে পরামর্শ দেন বলে অভিযোগ করেন বিভাগটির তিন শিক্ষক। এর প্রেক্ষিতে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি বিভাগীয় দুইজন শিক্ষক সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত থাকা অবস্থায়, নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত ড. এ.বি.এম. নাজমুল ইসলাম খানকেই বিভাগীয় সভাপতি হিসেবে বহাল রাখা চ.বি. এ্যাক্ট ১৯৭৩ এর সংবিধির ধারা ৭ সুস্পষ্ট লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে হাইকোর্টে রিট করেন সহকারী অধ্যাপক মো. সাখাওয়াত হোসেনসহ তিন শিক্ষক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2021 Dainik Agoni Kontho
Theme Customized By Theme Park BD