1. admin@danikagonikontho.com : admin :
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০১:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পীরগঞ্জে কমিউনিস্ট পার্টির চতুর্দশ সম্মেলন উপলক্ষে র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সরাইলে ইসলামাবাদ প্রিমিয়ার ডে-নাইট শর্ট সার্কেল ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত পীরগঞ্জে জাতীয় ভোটার দিবস উপলক্ষে র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত চট্টগ্রামে বেওয়ারিশ সেবা ফাউন্ডেশনের আয়োজনে অন্ধ হাফেজদের নিয়ে হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতার রেজিষ্ট্রেশন শুরু চট্টগ্রাম রিপোটার্স অ্যাসোসিয়েশন’র পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা,সভাপতি -সোহাগ আরেফিন, সম্পাদক-নুরুল আমিন খোকন ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে জাতীয় বিমা দিবস পালিত ঠাকুরগাঁওয়ে হরিপুরে টেংরিয়া প্রধান পাড়ায় নাট দিবস পালিত দখল ও দূষণে অস্তিত্ব সংকটে মোংলার অধিকাংশ খাল,পরিচ্ছন্ন অভিযানে পৌর মেয়র ঠাকুরগাঁওয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জীবনালেখ্য ও যুদ্ধকালীন ঘটনা নিয়ে নির্মিত ‘আত্মকথন’ শীর্ষক ভিডিও চিত্র উদ্বোধন নাজিরপুরে স্বামী পরিত্যক্তা সুনীতি মিস্ত্রির জমি-বাড়ি দখলের চেষ্টা

মঠবারিয়ায় টুংটাং শব্দে মুখরিত কামার পড়া

  • আপডেট সময় : শনিবার, ৯ জুলাই, ২০২২
  • ৬৬ বার পঠিত

পঙ্কজ মিত্র:মঠবা‌ড়িয়া(‌পি‌রোজপুর) প্র‌তি‌নি‌ধিঃ কোরবানির ঈদ এলেই টুং টাং শব্দে মুখরিত হয়ে ওঠে দেশের বিভিন্ন জেলার কামার পাড়াগুলোতে। বেড়ে যায় কারিগরদের ব্যস্ততা।

এদিকে হাতুড়ি পেটা শব্দে মুখর পিরোজপুরের মঠবা‌ড়িয়া উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের কামারপাড়া। সারাদিন তপ্ত ইস্পাত গলিয়ে চলছে, দা, বটি, কোদাল, খোন্তা, কুরাল ও গরু জবাই করা ছুরি তৈরির কাজ। দম ফেলারও সময় নেই কামারদের। নাওয়া-খাওয়া ভুলে কাজ করছেন তারা। কাক ডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করে যাচ্ছেন। কামারপাড়ায় এখন গেলেই শোনা যায় হাতুড়ি পেটানোর শব্দ। কেউ ভারী হাতুড়ি দিয়ে পেটাচ্ছেন আগুনরাঙা লোহার খন্ড। কেউ ভোঁতা হয়ে পড়া দা ও ছুরিতে শাণ দিচ্ছেন। কেউবা হাপর টানছেন। কেউ আবার কয়লার আগুনে বাতাস দিচ্ছেন।

মঠবা‌ড়িয়া উপজেলার বাজার গুলোতে বিভিন্ন কামারের দোকান ঘুরে দেখা যায় দা, ছুরি, চাকু ও বঁটির বেচাকেনা বেড়েছে। দামও সন্তোষজনক। তবে কামারপাড়ার কারিগররা অভিযোগ করেন, তাদের পরিশ্রমের তুলনায় মজুরি অনেক কম। সারা দিন আগুনের পাশে বসে থাকতে হয়। ফলে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা শরীরে তৈরি হয়। তবে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে মঠবা‌ড়িয়ায় কমে যাচ্ছে কামার সম্প্রদায়। বাধ্য হয়ে পৈত্রিক পেশা পরিবর্তন করছে অনেকে।

মঠবা‌ড়িয়া উপজেলার কামাররা বলেন, সারা বছর আমাদের মোটামুটি বিক্রি হয়। তবে কোরবানি এলে বিক্রি হয় একটু বেশি। উৎপাদন ও প্রতিযোগিতা বেড়ে যাওয়ায় লাভ আগের চেয়ে কম। উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের কর্মকাররা জানান, কোরবানির ঈদে তারা প্রতিবছর বিভিন্ন ধরনের উপকরণ তৈরি করেন। বর্তমানে লোহা ও কয়লার দাম অনেক বেড়েছে। সে তুলনায় কামার শিল্পের উৎপাদিত পণ্যের দাম বাড়েনি। এছাড়া আধুনিকতার ছোঁয়ায় এসব পণ্য তৈরির বেশকিছু প্রযুক্তি নির্ভর হওয়ায় কামার সম্প্রদায় আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়ছে। তাদের প্রত্যাশা সরকারি পৃষ্ঠপেষকতা পেলে এ শিল্প আবারও ঘুরে দাঁড়াবে।

উপজেলার বড়মাছুয়া বাজারের স্থানীয় বাসিন্দা লক্ষণ কর্মকার জানান, সারাবছর বেচাকেনা কিছুটা কম থাকে। কোনোরকম দিন যায়। এই সময়ের জন্য সারা বছর অপেক্ষায় থাকি। কুরবানির ঈদের আগে বেচাকেনা একটু ভালো হয়। কয়েকজন ক্রেতা জানান, কুরবানি ঈদের আগেই পশু জবাইয়ের সরঞ্জাম কেনার কাজটি সেরে ফেলছেন। তবে অন্য বছরের চেয়ে এবার ছুরি, চাকু, বঁটির দাম একটু বেশি বলে জানান তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2021 Dainik Agoni Kontho
Theme Customized By Theme Park BD